News Britant

Wednesday, August 17, 2022

একলা পথে হবে নিজের সাথে নিজের পরিচয়, আগ্রহ বাড়ছে ভ্রমণের নতুন ট্রেন্ড “সোলো ট্রিপ”-এর

Listen

কৌশিক চট্টোপাধ্যায় :ময়ের সাথে সাথে ক্রমাগত পালটে যাচ্ছে বাঙালির ভ্রমণের ধরনধারণ। কর্পোরেট জগতের ইঁদুর দৌড় থেকে বেড়িয়ে মাঝেমধ্যেই একলা হতে চাইছে ভ্রমণের কয়েকটা দিন। পৃথিবীর অন্যান্য দেশের ভ্রমণ পিপাসুদের মতো এদেশেও সমানতালে জনপ্রিয় হচ্ছে ‘সোলো ট্রিপ’ অর্থাৎ একলা ভ্রমণ। ষাট বা সত্তরের দশকের বাঙালির ভ্রমণ পরিকল্পনা এখন অনেকটাই পরিবর্তন হয়ে গিয়েছে। তখন ছিলো মাস খানেক আগে থেকেই ভ্রমণের পরিকল্পনা তৈরি করার ব্যস্ততা। স্পট সিলেকশনের জন্য চা শিঙাড়া সহযোগে ঘনঘন বেশ কয়েকটা বৈঠকে তুমুল হৈচৈ,হাসি, গল্প, আলোচনা। অবশেষে ভারতীয় রেলের অ্যাডভান্সড টিকিট কাউন্টার থেকে টিকিট কেটে সময় মতো স্লিপার ক্লাসে বেডিংপত্র নিয়ে উঠে পরা। সে সময়ে অনেক গ্রুপই রান্নার সরঞ্জাম নিয়ে বেড়িয়ে পরতো অচেনাকে চেনার উদ্দেশ্যে। ট্যাঁকে টাকার অভাব থাকলেও আনন্দের কমতি ছিলনা কখনোই।

Third party image reference

সময়ের সাথে পাল্লা দিতে দিতে ভ্রমণ পিপাসু বাঙালির মনে প্রাণে এখন শুধুই ‘কর্পোরেট হাওয়া’। বেশ কিছু ভ্রমণ পিপাসু মানুষদের মতে পরিচিত অপরিচিত স্থানের পরিবেশকে সবকটি ইন্দ্রিয় দিয়ে উপভোগ করার জন্য একাএকা বেড়িয়ে পড়ার মজাটাই আলাদা। এক্ষেত্র নিজের ওপর আলাদা একটা কনফিডেন্স তৈরি হয়ে যায়। কাজ আর সাফল্যের ইঁদুর দৌড় থেকে বেড়িয়ে নিজেকে একটু নতুন করে চিনে নেওয়া। অচেনা পরিবেশে নতুন নতুন বন্ধু তৈরি করা তাদের অভিজ্ঞতা ভাগ করে নেওয়া। অচেনা পথে চলতে চলতে নতুন কোনো রঙ খুঁজে পাওয়া,অজানা কোন স্থানীয় খাওয়ার চেখে দেখা আর একলা পথের অজানায় নিজেকে খুঁজে পাওয়ার সে এক আশ্চর্য অনুভূতি। কিন্তু হাতের কাছে কোথায় হতে পারে আপনার সোলো ট্রিপ ডেস্টিনেশন? রইলো কয়েকটি ঠিকানা :-

আরিতার : সোলো ট্রিপের ক্ষেত্রে আপনার প্রথম ডেস্টিনেসন হতেই পারে ‘আরিতার’। রঙবেরঙের পাহাড়ি ফুল আর ঝর্ণাদিয়ে সাজানো সিকিমের ছোট্ট এই পাহাড়ি গ্রামটি ক্রমশই টুরিস্টদের কাছে জনপ্রিয় ডেস্টিনেসন হয়ে উঠছে। পায়ে হেঁটে সামান্য চড়াই উতরাই পথে পৌঁছে যান আরিতারের সবচেয়ে উঁচু স্থানে। বেশ কয়েক ঘন্টা সময় কাটান আরিতারের পবিত্র ল্যামপোখরি লেকে। সেখান থেকে হাঁটা পথেই ঘুরে আসুন আরিতার মনাস্ট্রি থেকে। আরিতার থেকে সামান্য রাস্তা গাড়িতে গিয়ে তারপর ট্রেকিং করে ঘুরে আসুন ফুসরে লেক থেকে। আকাশ পরিষ্কার থাকলে ফুসরে লেকে কাঞ্চনজঙ্ঘার প্রতিবিম্ব আপনার সারাজীবনের স্মৃতি হয়ে থাকবে ।

কিভাবে যাবেন:  শিলিগুড়ি থেকে গাড়ি বুক করে রংপো হয়ে আরিতার মাত্র ১৩৬ কিলোমিটার। সময় লাগবে প্রায় তিন ঘন্টা। অথবা কালিম্পং হয়ে আরিতারে পৌঁছে যেতে পারেন।
কোথায় থাকবেন: দ্য গ্রীন লন রিসর্ট জন প্রতি ১০০০-১২০০ থাকা খাওয়া সহ।

সামাতার : সোলো ট্রিপের ক্ষেত্রে আপনার অন্য আরোএক ডেস্টিনেসন হতেই পারে দক্ষিণ সিকিমের পাহাড়ি গ্রাম সামাতার। প্রায় ১৪৬০ ফুট উচ্চতায় রহিতক নদীর ঘোলাটে জল এখানে এসে মিসেছে রঙ্গিতের নীল জলের সাথে। দূর্বার স্রোতস্বিনী রঙ্গিতের নীল জল এখানে পাথরে পাথরে ধাক্কা খেয়ে এগিয়ে চলছে পাহাড়ি ঢাল বেয়ে। পায়ে হেঁটে ঘুরে আসুন প্রাচীন শিবমন্দির। অর্ধচন্দ্রাকৃতি নদী ধার ঘেঁসে পায়েপায়ে এগিয়ে চলুন ঝুলন্ত ব্রিজ পর্যন্ত। দক্ষিণ সিকিম আর পশ্চিম সিকিমের মাঝে এই ঝুলন্ত সেতু রোথক। বিকেলের পড়ন্ত সূর্যের আলোয় দ্রুত মায়াবী সামাতারকে ক্যামেরাবন্দী করে নিন।

কিভাবে যাবেন: নিউ জলপাইগুড়ি স্টেশনে থেকে সামাটারের দূরত্ব ৮৬ কিলোমিটার। গাড়িতে সময় লাগবে আড়াই ঘণ্টার মতো। পুরো গাড়ি রিজার্ভ করলে ভাড়া পড়বে প্রায় ২৫০০-৩০০০ টাকা। কম খরচে আসতে চাইলে শিলিগুড়ি এসএনটি থেকে শেয়ার জিপে চলে আসুন জোরথাং। জোরথাং থেকে সামাটারের দূরত্ব মাত্র ৬ কিলোমিটার। পুরো গাড়ি ভাড়া পড়বে ৩০০-৪০০ টাকা।
কোথায় থাকবেন: ‘রিভার ওয়াচ রিসর্ট’। দ্বিশয্যা কটেজের ভাড়া ১৫০০-২৫০০ টাকা। যোগাযোগ- পাসাং লেপচা 8670628999

টেমি-তারখু টি-গার্ডেন : চাবাগান আর পাইন গাছে ঘেরা তিমি তারখু টি গার্ডেনে নিশ্চিন্তে কাটাতে পারেন দুটো দিন। সম্পূর্ণ দূষণ মুক্ত পরিবেশে বুক ভরে নিন বিশুদ্ধ অক্সিজেনে। পাহাড়ি পথ বেয়ে ছায়াঘেরা পাইন গাছের মধ্যদিয়ে হেঁটে বেড়ান। আকাশ পরিষ্কার থাকলে আকাশ জুড়ে পেয়ে যাবেন কাঞ্চনজঙ্ঘাকে।

কিভাবে যাবেন: যেকোন গাড়ি করে পশ্চিম সিকিমের ডেনতাম হয়ে পৌঁছে যান তিমি-তারখু-টি গার্ডেনে।

কোথায় থাকবেন: টেমি হোম স্টে ১২০০ থেকে ১৪০০ জন প্রতি থাকা খাওয়া, চেরি রিসোর্ট ঘর প্রতি ২৫০০ – ৪০০০

ওখরে-হিলে-ভার্সে : অফবিট ডেস্টিনেসনের মধ্যে পর্যটকদের কাছে ক্রমশই জনপ্রিয় হয়ে উঠছে সিকিমের পাহাড়ি গ্রাম ওখরে। সিকিমের জনপ্রিয় ডেস্টিনেসন রাবাংলা থেকে সামান্য দূরে পাহাড়ি আর রঙবেরঙের প্রজাপতির দেশ ওখরে।

সমুদ্র সমতল থেকে প্রায় ১০০০০ ফিট উচ্চতায় পেয়ে যাবেন রডোডেন্ড্রন স্যাঞ্চুরি। প্রায় ৬০০ রকমের রডোডেনড্রন হোমস্টের বারান্দায় বসে সারাদিন কথা বলুন কাঞ্চনজঙ্ঘার সাথে। ট্রেকিং করে সামান্য চড়াই পথে প্রায় চার কিলোমিটার পথে এগিয়ে দেখে আসুন পাহাড়ি ঝর্না। পথে পাবেন নানা রঙের রডডেনড্রন । রাতে

কোথায় থাকবেন: বোধিভিলা হোমস্টে।

 

#samatar #sikim #temi #tea #garden #solotrip #solo trip travellers

*picture reference from google and others

News Britant
Author: News Britant

Leave a Comment