News Britant

Saturday, December 3, 2022

ভারতীয় রাজনীতিতে স্বর্ণ অধ্যায় “ডঃ প্রণব মুখোপাধ্যায়”

Listen

( খবর টি শোনার জন্য ক্লিক করুন )

#সুমন রায়: স্বাধীনতার পর ভারতীয় রাজনীতিতে “প্রণব মুখোপাধ্যায়” একটি সুদীর্ঘ স্বর্ণ অধ্যায়। আর এই স্বর্ণ অধ্যায়ে প্রধানমন্ত্রীত্ব করেছেন অনেকেই তবে প্রধানমন্ত্রী নাহয়েও বিচক্ষণ রাজনীতিবিদ হিসেবে নিজেকে তুলে ধরেছিলেন প্রণব মুখোপাধ্যায়। জাতীয় কংগ্রেসে ১৯৭১ থেকে ২০১২ পর্যন্ত ছিলেন প্রণব মুখোপাধ্যায়। মাঝে রাজীব গান্ধীর সাথে মতানৈক্য হওয়ায় ১৯৮৬ সালে কংগ্রেস থেকে বেরিয়ে নতুন দল তৈরি করেন প্রণব মুখোপাধ্যায়, নাম দেন রাষ্ট্রীয় সমাজবাদী কংগ্রেস। আবার ১৯৮৯ পুনরায় ফিরে যান জাতীয় কংগ্রেসে।

প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধীর আমলে সামলেছেন অর্থমন্ত্রক, পিভি নরসিমা রাও এর আমলে হয়েছেন বিদেশমন্ত্রী।তবে মনমোহন সিং এর জামানায় সব থেকে বেশি দায়িত্ব সামলেছেন।কখনও হয়েছেন অর্থমন্ত্রী কখনও আবার বিদেশমন্ত্রী। ২০০৪ থেকে ২০০৬ পর্যন্ত থেকেছেন প্রতিরক্ষা মন্ত্রী। মনমোহন সিং প্রধানমন্ত্রী হলেও প্রণব মুখোপাধ্যায়কে ‘স্যার’ বলে সম্বোধন করতেন।কারন দীর্ঘ সময় ধরে প্রণব মুখোপাধ্যায় কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী থাকাকালীন মনমোহন সিং কাজ করছেন। তাই হয়তো এই ‘স্যার’ ডাকে অভ্যস্ত ছিলেন মনমোহন সিং।তবে প্রধানমন্ত্রীর ‘স্যার’ ডাকে কিছুটা অপ্রস্তুত হওয়ায় অবশেষে মনমোহন সিং ‘প্রণব জি’ বলেই ডাকতেন।

প্রত্যেক রাজনৈতিক দলের সাথেই সু-সম্পর্ক ছিলো প্রণববাবুর।মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ছিলেন প্রণব মুখোপাধ্যায়ের স্নেহের মানুষ।এমনকি প্রণব বাবু এও বলেছেন,” মমতা বলেছে আমায় বোরোলি মাছ রান্না করে খাওয়াবে।” এরপর সুদীর্ঘ রাজনৈতিক জীবন ছেড়ে ২০১২ সালে পা রাখলেন নতুন এক সিড়িতে। রাষ্ট্রীয় প্রধান হিসেবে শপথ নিলেন প্রণব মুখোপাধ্যায়।ঝকঝকে রাজনৈতিক জীবন ছেড়ে প্রণব বাবুর জায়গা হল রাষ্ট্রপতি ভবনে।প্রথম বাঙালি রাষ্ট্রপতি হলেন প্রণব মুখোপাধ্যায়।

তবে এতো কিছুর মধ্যেও আফশোস থেকেই যায়।সম্পূর্ণ যোগ্যতা থাকা সত্ত্বেও স্বাধীন ভারতের প্রধানমন্ত্রী পদে বসতে পারেন নি তিনি।যা জাতীয় কংগ্রেসের এক প্রকার ব্যর্থতাই।প্রণব মুখোপাধ্যায়ের মত পোড় খাওয়া রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বকে মননীত করা হয়নি দেশের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে। কে বলতে পারত, প্রণব বাবু প্রধানমন্ত্রী হলে আজ জাতীয় কংগ্রেসের এই বেহাল দশা দেখতে হত না! এই দুর্দিনে পড়তে হতনা কংগ্রেসকে!তবে হয়তো যা হয় তা ভালোর জন্যই হয়।রাষ্ট্রপতি হয়ে শেষমেশ তিনি আর কোনো রাজনৈতিক দলের রইলেন না, থেকে গেলেন সর্ববৃহৎ গণতান্ত্রিক দেশের রাষ্ট্র প্রধান। ভালো থাকবেন “প্রণব মুখোপাধ্যায়”।

 

News Britant
Author: News Britant

Leave a Comment