News Britant

Wednesday, August 17, 2022

পাহাড় ডাকে তাই চলুন ঘুরে আসি মেঘে ঢাকা পাহাড়ি গ্রাম মানজিং – লুংসেল

Listen

#মালবাজার: গানের কলিতে আছে ‘পাহাড় ডাকে আয় রে’। সত্যি পাহাড়ের ডাক অস্বীকার করা যায়না। এভারেস্ট জয়ী পর্যটক উজ্জ্বল রায় একদিন পাহাড়ে ঘুরতে গিয়ে জানিয়েছিলেন ‘পাহাড়ের ডাক উপেক্ষা করা যায় না। তাই বার বার কলকাতা থেকে সময় হলেই ছুটে আসি পাহড়ে’। যুগ যুগ ধরে ভারতীয় সাধকেরা সিদ্ধি লাভের জন্য ছুটে এসেছেন হিমালয়ের সু-মহান উচ্চতা ও গাম্ভীর্যের কাছে।

শুধু সাধকদের তপস্যার জন্য নয়,হিমালয়ের আকর্ষণে ছুটে পর্বতারোহী থেকে পর্যটক। সাধকদের কথা তারাই ঠিক করবেন কোথায় তাদের গন্তব্য। তবে পর্বতারোহী ও পর্যটকরা একবার ঘুরে আসতে পারেন মেঘেঢাকা পাহাড়ি গ্রাম মানজিং ও লুংসেল। মালবাজার শহর সংলগ্ন নিউমাল স্টেশনে নেমে আসতে হবে ওদলাবাড়ি শহরে।

সেখান থেকে ভাড়া গাড়ি নিয়ে মানাবাড়ি, তুরিবাড়ি পেরিয়ে পাথরঝোড়া চাবাগান পেরিয়ে সোজা উপর চড়াই ধরে এগিয়ে চলতে হবে। পথেই দেখা যাবে ঝাউ ও অন্যান্য গাছের বনাঞ্চল। ওদলাবাড়ি শহর থেকে মাত্র ৩০ কিমি পেরিয়ে গেলেই পেয়ে যাবেন সুন্দর পাহাড়ি গ্রাম মানজিং। মানজিং ফুটবল মাঠের পাশে দাড়ালেই দেখা যাবে নিচে মেঘের আনাগোনা। গা’য়ের উপর দিয়ে বয়ে যাবে মেঘের পরশ।

মেঘ সরে গেলেই দেখা যাবে অনেক নিচ দিয়ে বয়ে চলছে নানান পাহাড়ি নদী ও ঝোড়া।লিস ও ঘিস নদী কিভাবে তিস্তার বুকে মিসেছে তা পরিস্কার দেখা যাবে।  মাটি থেকে প্রায় ৫৩০০ ফুট উচুতে এই মানজিং পাহাড়ি গ্রাম সত্যিই অপরুপ। এখানের মানুষদের প্রধান জীবিকা কৃষি কাজ মুলত এলাচ, ঝাড়ু, আদা, উৎপাদন করেই জীবিকা চলে। মানজিং থেকে কয়েক কিলোমিটার পুবেই রয়েছে আর এক পাহাড়ি গ্রাম লুংসেল।

এখানেও দেখা মেঘের খেলা। উপরে তাকালেই চোখে পড়বে একাধিক  সুউচ্চ মহান গম্ভীর পাহাড়ের চূড়া। পাহাড়ের গা বেয়ে নেমে আসছে পাহাড়ি ঝরনা। পাহাড় নেমে আপন ছন্দে গিয়ে মিসেছে নদীতে। মানজিংয়ে থাকার মতো কোন হোম স্টে না থাকলেও লুংসেলে একটি হোমস্টে রয়েছে। থাকার খরচ আয়ত্তের মধ্যেই।দিনপিছু একজনের থাকা ও খাওয়ার মাত্র ১৫০০ টাকা।

নিরিবিলি পাহাড়ি গ্রাম সারাদিন পাখির ডাক ও ঝর্ণার কলোতান শুনে কেটে যাবে। সাথে পাবেন বিসুদ্ধ অক্সিজেন। করোনার প্রকোপ নেই। স্থানীয়দের মুখে মাক্সের দেখা পাওয়া যায়না। ডুয়ার্স ও পাহাড়ের প্রকৃত রূপ দেখা এই বর্ষায়। তাই সময় থাকলে চলে আসুন অপরূপ সুন্দর এই পাহাড়ি গ্রামে। ঝর্নার কলতানের সাথে নানান পাখির ডাক শুনতে শুনতে এদিক ওদিক ঘুরে কেটে যাবে দিন।সন্ধ্যার পর কানে ভেসে আসবে ঝিঁঝি পোকার ডাক। এসব ভালো লাগলে ঘুরে আসুন মানজিং ও লুংসেল।

News Britant
Author: News Britant

Leave a Comment