News Britant

Wednesday, August 17, 2022

প্রাচীরহীন স্কুলে গভীর রাতে বসছে নেশার আসর, ক্ষুদ্ধ বাসিন্দারা

Listen

#রায়গঞ্জঃ ১১ নম্বর বীরঘই গ্রাম পঞ্চায়েতের বাজিতপুর প্রাথমিক স্কুলে নেই কোনো সীমানা প্রাচীর। তাই প্রাচীরহীন এই বন্ধ স্কুলে গভীর রাতে বসছে বহিরাগতদের নেশার আসর। এমন ঘটনায় ক্ষোভ উগড়ে দিলেন স্থানীয়  বাসিন্দারা। রায়গঞ্জ শহর থেকে পূর্ব দিকে পা বাড়ালেই তাহেরপুর গ্রাম। সেই গ্রাম পেরোলেই বাজিতপুর গ্রাম। সেখানেই রয়েছে বাজিতপুর প্রাথমিক বিদ্যালয়। সেখানকার স্থানীয় বাসিন্দাদের অভিযোগ, এখানে রাত বাড়লেই বহিরাগত ছেলে মেয়েরা এসে নানা ধরনের নেশা করে। গভীর রাত পর্যন্ত চলে এই নেশার আসর। এরপর রাত গভীর হলে, তারা ফিরে যায়। প্রতিদিনকার এমন ঘটনায় স্থানীয় বাসিন্দারা তিতিবিরক্ত হয়ে উঠেছেন। মইনত আলি নামের স্থানীয় বাসিন্দা বলেন, ‘এই স্কুলটির বিল্ডিং বহিরাগত জনসাধারণের কাছে নেশার তীর্থ ক্ষেত্র হিসেবে ব্যবহৃত হচ্ছে। প্রাচীর না থাকায় বহু বহিরাগত এসে নেশা করছে। এটা দীর্ঘদিন চলতে দেওয়া যায় না। স্কুলে সীমানা প্রাচীর তৈরি হলে এই সমস্যা দূর হবে।’ মহম্মদ ইব্রাহিম নামের আরেক বাসিন্দা জানান, এই এই স্কুলটি সরকারি নির্দেশিকা মেনে বন্ধ রয়েছে। রাত বাড়লে বহিরাগত নেশারুরা এখানে নেশা করতে আসেন। এলাকার পরিবেশ নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। ‘ আরেক বাসিন্দা ভানু চন্দ্র দাস বলেন, ‘স্কুলটির প্রাচীর নেই। উত্তর দিকে ব্যস্ত পিচের সড়ক এবং দক্ষিণ দিকে পাড় ভেঙে পড়া একটা জলাশয়। সীমানা প্রাচীর  না থাকায় বহিরাগত নেশা আসক্তরা এখানে এসে নেশা করে। গভীর রাত পর্যন্ত চলে এই তান্ডব। ভেঙে রেখে যায় মদের বোতল, বাচ্চা, বড়দের তৈরি হয় এক বিশ্রী উৎপাত। তাই আমরা চাই এখানে দ্রুত সীমানা প্রাচীর তৈরি করা হোক।’ একই দাবি অবশ্য এলাকার খুদেদের।  তারা বলে, প্রাচীর তৈরি হলে আমাদের খেলাধুলা করতে সুবিধা হয়। নইলে অনেকে দীঘিতে পড়ে যায় বা খেলার বল জলে পড়ে যায়। তাই সীমানা প্রাচীর তৈরি করা হোক।’ স্থানীয় পঞ্চায়েত সদস্য মনসুর হাবিবুল্লাহ দাবি করে বলেন, ‘এখানে নেশার জন্য বহিরাগতরা আসছে, সে খবর পেয়েছি। নেতৃত্বর মাধ্যমে জেলা প্রশাসনের আধিকারিকদের নজরে আনা হচ্ছে। তবে, এই স্কুলটির সীমানা প্রাচীর তৈরি হলে এই সবরকম সমস্যা সমাধান হয়ে যাবে।’ 
News Britant
Author: News Britant

Leave a Comment

Also Read