News Britant

Wednesday, August 17, 2022

পাড়ায় শিক্ষালয়ের প্রথম দিনে খুদে পড়ুয়াদের শঙখধ্বনি, ফুল ও বেলুনে অভ্যর্থনা জানালেন শিক্ষক শিক্ষিকারা

Listen

#রায়গঞ্জ: হারিয়ে ফিরে পাওয়ার আনন্দই আলাদা। তেমনই অনুভূতির আস্বাদ মিললো সোমবার প্রাথমিক থেকে শুরু করে হাইস্কুলের আঙিনায়। সারা রাজ্যের সঙ্গে পাড়ায় শিক্ষালয় কর্মসূচিতে রায়গঞ্জের স্কুলগুলোতেও প্রথম থেকে সপ্তম শ্রেনীর ক্লাস শুরু হল এদিন। শঙখধ্বনি, ফুল, বেলুন কোনোকিছুই বাদ পড়ল না কচিকাঁচাদের প্রথম দিনের স্কুলে। দীর্ঘ দুবছর পর স্কুলে প্রবেশ করল ছোটরা। কেউ কেউ আবার এই প্রথম স্কুলের গন্ডীতে পা রাখল।

আনন্দ উপচে পড়লো স্কুলের আঙিনায়। পড়ুয়াদের সামাজিক সুরক্ষা, স্বাস্থ্য, পরিচ্ছন্নতা, পড়া ও লেখার দক্ষতা বৃদ্ধি থেকে শুরু করে নাচ, গান, আবৃত্তির মতো বিভিন্ন সাংস্কৃতিক বিষয়ের উপর জোর দেওয়া হবে ‘পাড়ায় শিক্ষালয়ে’। কোভিড আবহে স্কুল বন্ধের সময়ে পড়ুয়াদের ভরসা ছিল একমাত্র অনলাইন ক্লাস। কিন্তু তাতেও সমস্যা। অনেকের কাছেই স্মার্টফোন নেই, আবার অনেকের ফোন থাকলেও নেটওয়ার্কের সমস্যা।প্রাথমিক স্তরের শিক্ষার্থীদের শিক্ষাদানের বিকল্প পথ ছিল না।

স্কুলের পরিবেশ, ক্লাসরুম, বন্ধুবান্ধব এক কথায় প্রায় সবই ভুলতে বসেছিল তারা। জীবনের প্রথম প্রাক- প্রাথমিক শিক্ষা থেকে তারা বঞ্চিত থেকে গেছে খুদেরা। যার ফলে তাদের প্রাথমিক বিকাশ অসম্পূর্ণ রয়ে গেছে অনেকক্ষেত্রেই। করোনা প্রকোপে স্কুলের পড়াশোনা না হওয়ায় শিক্ষার্থীরা তাদের প্রাথমিক শিক্ষা থেকে অনেকটাই পিছিয়ে পড়ছে। এবার সেই অসুবিধা দূর করতে রাজ্যের পাশাপাশি উত্তর দিনাজপুর জেলার প্রাথমিক পড়ুয়াদের জন্য সোমবার থেকে শুরু হল পাড়ায় শিক্ষালয়।

এদিন রায়গঞ্জের সরলা সুন্দরী জি এস এফ পি স্কুলে ক্লাস শুরুর দিন আনন্দে মেতে ওঠে শিক্ষিকা ও ছাত্রছাত্রীরা।  ফুল,  বেলুন ও শঙখধ্বনিতে বরণ করে নেওয়া হয় খুদেদের। আবার আগের মতই প্রার্থনা সঙ্গীতে গলা মেলানো, মিড ডে মিল খাওয়া ঘিরে ছন্দে ফেরার বার্তা স্কুলে। সরলা সুন্দরী জি এস এফ পি স্কুলের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষিকা অঞ্জনা কুন্ডু ধর বলেন, ‘আজকের দিন সত্যিই আমাদের কাছে উৎসবের সমান। এই আনন্দযজ্ঞ আবার যেন বন্ধ না হয়ে যায় প্রার্থনা করি। আজ স্কুলে মিড ডে মিল খাওয়া থেকে শুরু করে পড়াশোনা, গল্প সবই হবে।’

দীর্ঘ প্রায় দুই বছর পরে স্কুলে ঢোকার আনন্দ ও নতুন বন্ধু পাওয়ার আনন্দে উৎফুল্ল পড়ুয়া থেকে অভিভাবকেরা সকলেই। এতদিন স্কুলের খাতায় নাম থাকলেও, স্কুল কেমন হয় তার স্বাদ পেল  খুদে পড়ুয়ারা। সাথে পিকনিকের আমেজে চলল ডিমের ঝোল দিয়ে গরম ভাত খাওয়া। এই ছবি দেখা গেল রায়গঞ্জ পুরসভার ২ নম্বর ওয়ার্ডের পার্বতী দেবী এফ পি স্কুলের মাঠে। প্রধান শিক্ষক অরূপ কান্তি ঘোষ বলেন, ‘স্কুলের সামনের বিশাল মাঠে আজ শুরু হল ক্লাস। দীর্ঘ দুবছর পর স্কুল খোলায় অনেক ছাত্রছাত্রী এসেছে। অভিভাবকদেরও সহযোগিতা রয়েছে।’

একই পরিবেশ দেখা গেল রায়গঞ্জ স্টেশনের সামনে খোলা জায়গায়। সেখানে রায়গঞ্জ রামকৃষ্ণ প্রাথমিক স্কুলের ক্লাস চলছিল। উপস্থিত ছিলেন রায়গঞ্জ পুরসভার ১৪ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর অনিরূদ্ধ সাহা। তিনি বলেন,’ রায়গঞ্জ পুরসভার ২৭ টি ওয়ার্ডের মধ্যে চারটি ওয়ার্ডে স্কুল নেই। আমার ওয়ার্ড টাও সেরকম। পাশের ওয়ার্ডের স্কুল থেকে চারজন শিক্ষক এসে এখানে মুক্ত পরিবেশে স্থানীয় বাচ্চাদের পড়াচ্ছেন।’

অন্যদিকে এদিন সকাল থেকে কলকাকলিতে মুখরিত হয়ে উঠেছিল রায়গঞ্জ গার্লস প্রাথমিক স্কুলেরও প্রাঙ্গন। বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক  গৌরাঙ্গ চৌহান বলেন, ‘আজকে স্কুলে প্রাক প্রাথমিকের ৭৫ জন বাচ্চা এসেছে। আমাদের শিক্ষার্থী সংখ্যা বেশি হওয়ার কারনে প্রতিদিন একটি করে ক্লাস নেওয়া হবে ঠিক করা হয়েছে। এতে দূরত্ববিধি মেনে চলাও সম্ভব হবে।’

সবমিলিয়ে পাড়ায় শিক্ষালয়ের প্রথম দিনে নতুন কর্মকান্ডের সাক্ষী থাকলো প্রাথমিক ও হাই স্কুলগুলি। রাজ্য সরকারের এই উদ্যোগকে আনন্দের সঙ্গে স্বাগত জানিয়েছেন বিদ্যালয়গুলির শিক্ষক শিক্ষিকা, ছাত্রছাত্রী ও অভিভাবকেরা। ছাত্রছাত্রীদের হৈ চৈ ও কলতানে স্কুলে স্কুলে যেন ফিরে এসেছে নতুন জীবনের জোয়ার। প্রাণের স্পন্দন ছাড়া যেমন শরীর অচল, ছাত্রছাত্রী ছাড়া বিদ্যালয়ও তেমনই অচল, এরই প্রমাণ হাতেনাতে মিলেছে এদিন।

News Britant
Author: News Britant

Leave a Comment

Also Read