News Britant

Wednesday, August 17, 2022

ঢাকার কড়া ধমক খেয়ে অবশেষে বাংলাদেশ-পাকিস্তানের একীভূত পতাকা সরালো দূতাবাস

Listen

#হাবিবুর রহমান, ঢাকা: ঢাকার কড়া ধমক খেয়ে অবশেষে বাংলাদেশের জাতীয় পতাকার সাথে পাকিস্তানের পতাকাজুড়ে দিয়ে ঢাকায় অবস্থিত পাকিস্তান হাইকমিশন যে ছবি প্রকাশ করেছিল তিনদিনের মাথায় সেই ছবি রবিবার নামিয়ে নিয়েছে পাকিস্তান। রবিবার ঢাকায় বিদেশ মন্ত্রকে সংবাদ সম্মেলনে বিদেশমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন পাকিস্তানের এ কাণ্ডের বিষয়ে আপত্তি জানান। সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে মেমেন বলেন, বাংলাদেশের জাতীয় পতাকার সঙ্গে পাকিস্তানের পতাকাজুড়ে দিয়ে ঢাকার পাকিস্তান হাইকমিশন যে ছবি প্রকাশ করেছে, সেটা আমাদের পছন্দ নয়।

ঢাকায় আসন্ন ডি-৮ বিদেশমন্ত্রী পর্যায়ের সম্মেলন উপলক্ষে এই সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে ড. মোমেন বলেন, পাকিস্তান প্রত্যেক দেশের পতাকা নিয়ে বিভিন্ন মিশনের পেজে ছবি আপলোড করেছে। শ্রীলঙ্কা, মালয়েশিয়া, ইন্দোনেশিয়া প্রভৃতি দেশের মিশনে তাদের অর্ধেক পতাকা, আর সেসব দেশের পতাকার ছবি এক সাথে দিয়েছে। তিনি বলেন, আমরা তাদের (পাকিস্তান) বলেছি এটা আমাদের পছন্দ নয়। তারা জানিয়েছে, তারা কোনো অসৎ উদ্দেশ্য নিয়ে এই ছবি প্রকাশ করেনি।

ঢাকার পাকিস্তান হাইকমিশন গত বৃহস্পতিবার (২১ জুলাই) দুপুর ১টা ৩৮ মিনিটে তাদের ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজের কভার ফটো হিসেবে বাংলাদেশ ও পাকিস্তানের পতাকা গ্রাফিক্সটি পোস্ট করা হয়। সেখানে গ্রাফিক্স ডিজাইনের মাধ্যমে বাংলাদেশ ও পাকিস্তানের পতাকা একীভূত করে প্রকাশ করা হয়। তারপর থেকেই সামাজিক গণমাধ্যমে শুরু হয়ে যায় তোলপাড়। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে তীব্র সমালোচনা শুরু হয়।বিশ্লেষকরা বলছেন, এটি পতাকাবিধির সুস্পষ্ট লঙ্ঘন। এ বিষয়ে ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির সভাপতি শাহরিয়ার কবীর বলেন, ‘এটি পাকিস্তান দূতাবাসের ধৃষ্টতা। তারা এখনও একাত্তরের পরাজয় ভুলতে পারেনি।

বিভিন্ন সময় বাংলাদেশের স্বাধীনতা ও স্বার্বভৌমত্ব নিয়ে কটাক্ষ করে। তারা মাঝে মধ্যে বিকৃত পরীক্ষা চালিয়ে দেখে বাংলাদেশের জনগণ প্রতিবাদ করে কিনা। কেবল ছবি নামালেই হবে না। বাংলাদেশের বিদেশ মন্ত্রকের উচিৎ, তাদের ডেকে শক্ত প্রতিবাদ জানানো। ঢাকায় পাকিস্তান হাই কমিশনের বিরুদ্ধে জাতীয় পতাকা অবমাননার অভিযোগ করে এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ। তাদের প্রতিবাদলিপিতে বলা হয়, মহান মুক্তিযুদ্ধে গণহত্যা ও গণধর্ষণে জড়িত ছিল পাকিস্তান। ঢাকায় তাদের হাই কমিশন অফিসিয়াল ফেসবুক পেজে বাংলাদেশের জাতীয় পতাকাকে বিকৃতভাবে উপস্থাপন করেছে। যা বাংলাদেশের পতাকাবিধির সুস্পষ্ট লঙ্ঘন।পতাকার ছবিটি পোস্ট করার পর পাকিস্তান হাইকমিশনের ফেসবুক পেজেও সমালোচনা শুরু হয়ে যায়। পরে পাকিস্তান হাইকমিশন কমেন্টস অপশন বন্ধ করে দেয়। এরপর সেখানে কেউ কমেন্ট করতে পারেননি।

ছবিটির বিষয়ে ঢাকা অবহিত হওয়ার পর শনিবার বিকাল ৫টায় ছবিটি নামিয়ে নিতে বাংলাদেশের বিদেশ মন্ত্রক থেকে বলা হয়। কিন্তু রবিবার সকাল ১০টা অবধি হাই কমিশনের ফেসবুক পেজের ‘কাভার ফটো’তে ছবিটি দেখা যায়। রবিবার বিদেশ মন্ত্রীর মন্তব্যের পর বিতর্কিত ওই পতাকা সরিয়ে নেয় ঢাকায় পাকিস্তান দূতাবাস। এরআগে ঢাকার বিদেশ মন্ত্রক থেকে বলার পরেও পাকিস্তান হাইকমিশন তা গুরুত্ব দেয়নি। অবশেষে রবিবার বেলা ১১টা ৫০ মিনিটে ফেসবুক পেজের কভার ফটো থেকে বিকৃত পতাকাটি সরিয়ে নেয়া হয়। তবে ছবিটি এখনও পাকিস্তান হাইকমিশনের ফেসবুক পেজে রয়ে গেছে।

News Britant
Author: News Britant

Leave a Comment