News Britant

Thursday, December 8, 2022

নিজের গ্রেপ্তারি পরোয়ানাকে বিরোধীদের ষড়যন্ত্র বললেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী

Listen

( খবর টি শোনার জন্য ক্লিক করুন )

#মালবাজার: নিজের গ্রেপ্তারি পরোনাকে বিরোধীদের ষড়যন্ত্র বল্লেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী জন বারলা। গত লোকসভা নির্বাচনের প্রচারে তুফানগঞ্জে  বিডিও অফিসের সামনে নির্বাচনের সময় র‍্যালি ও পথসভা করেন জন বারলা। এই নিয়ে নির্বাচন কমিশনের এক আধিকারিক তার বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেন। তিনি আদালতে হাজিরা না দেওয়ার তার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করে তুফানগঞ্জের মহকুমা আদালত। এনিয়ে বৃহস্পতিবার দুপুরে ডুয়ার্সের লক্ষীপাড়া চাবাগানে সাংবাদিকদের সামনে বিরোধিদের এটা  ষড়যন্ত্র বলে দাবি করেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী জন বারলা।

তিনি জানিয়েছেন এর আগেও বিরোধীরা তার বিরুদ্ধে মামলা করেছিল। তিনি দুইবার জেলও খেটেছেন। কিন্তু এভাবে তাকে দাবিয়ে রাখা যাবে না বলে জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী জন বারলা।স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী নিশীথ প্রামানিকের পর সংখ্যালঘু উন্নয়ন দফতরের প্রতিমন্ত্রী জন বারলার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি হওয়ায় বিষয় টি নিয়ে রাজনৈতিক মহলে সোরগোল পড়েছে। এদিন বানারহাটের লক্ষীপাড়া চাবাগানে সংখ্যালঘু উন্নয়ন দফতরের প্রতিমন্ত্রী জন বারলা বলেন, এটা নিয়ে আমি আইনি লড়াই করব।আইন কে আমি শ্রদ্ধা করি। এরকম কোন ভুল হয়নি। এটা নিয়ে রাজনীতি হয়েছে। এর আগেও ৪৫ দিন জেল খেটেছি। আমাকে হ্যারেজমেন্ট করেছে।

আমার ভাইকে হ্যারেজমেন্ট করেছে। ভাই ১০ দিন জেল খেটেছে। এদের পার্টিতে জয়েন না করায় জেল দিয়েছে। জলপাইগুড়ি, আলিপুরদুয়ার জেলে ছিলাম। তিনি প্রশ্ন তোলেন জেলে পুড়ে উন্নয়ন রুখবে? জেলে ঢুকিয়ে দাবাবে? এটা রাজনীতি ভাবে হ্যারেজমেন্ট করছে। মানুষ বুঝে গেছে।মিথ্যে কেস রেপ, অ্যাটেম টু মার্ডার কেস দিয়ে কার্যকর্তাদের ফাঁসাচ্ছে। ২০১৯ এ জনগন আশীর্বাদ দিয়েছে। আগামী দিনেও দেবে।দিদির সরকার রাজনীতি করছে। এটা করে পার পাবে না। যদিও এই ঘটনার প্রতিক্রিয়া জানাতে গিয়ে তৃণমূল কংগ্রেসের  জেলা সভাপতি মহুয়া গোপ বলেন, জন বারলা নির্বাচনী বিধি ভঙ্গ করেছে।সেই জন্যই তার বিরুদ্ধে কেস হয়েছে। নির্বাচনের সময় সব রাজনৈতিক দলের বিরুদ্ধে কেস হয়।

এখানে বিরোধী মানে তৃণমুলকে কেন টানছে বুঝতি পারছিনা। তিনি নির্বাচনী বিধি ভঙ্গ করেছিলেন তাই বিরুদ্ধে আদালত ব্যবস্থা নিয়েছে। এদিকে তুফানগঞ্জ মহকুমা আদালতের এপিপি সঞ্জয় বর্মন বলেন, গত ১৫ নভেম্বর তুফানগঞ্জের মহকুমা আদালত এমপি জন বারলার বিরুদ্ধে একটি গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেছেন কারন হল তার বিরুদ্ধে একটা পুরনো কেস সেটা ২০১৯ সালের ৪ এপ্রিল তিনি তখন আলিপুরদুয়ার লোকসভা কেন্দ্রের প্রার্থী ছিলেন। সেই সময় তিনি তুফানগঞ্জ ব্লক ২ তে একটি বাইক ও গাড়ি নিয়ে র‍্যালি  করেছিলেন সেটার কোন পারমিশন ছিল না। এবং সেই সময় নির্বাচনী বিধি ভঙ্গ করেছিলেন।

তখন থানা থেকে একটা কেস করা হয় সেই নির্বাচনী আধিকারিক ছিলেন দেব দুলাল অধিকারী তিনি থানাকে জানিয়েছিলেন। তখন থেকে কেস শুরু হয়। তাকে সমন পাঠানো হয়েছিল গত ১৫ নভেম্বর আদালতে উপস্থিত হওয়ার জন্য কিন্তু তিনি আসেননি তার কোন প্রতিনিধিও আসেনি তাই তার বিরুদ্ধে গ্রেফতারী পরোয়ান জারি করে বক্সিরহাট থানাকে পাঠিয়ে দিয়েছেন। এই গ্রেপ্তারি পরোয়ানা নিয়ে ডুয়ার্সের রাজনীতি সরগরম হয়ে উঠেছে। 

Leave a Comment