News Britant

Thursday, December 8, 2022

আবার ভালুকের আতংক এবার শহর সংলগ্ন এলাকায়

Listen

( খবর টি শোনার জন্য ক্লিক করুন )

#মালবাজার: ডুয়ার্সের চাবাগানে আবার ভালুকের আতংক। এবার মালবাজার শহর সংলগ্ন টুনবাড়ি চাবাগানে। ঠিক একবছর আগে ২৪ নভেম্বর ২০২১ তারিখে ডুয়ার্সের মেটেলি ব্লকের মুর্তি চাবাগানে দীর্ঘদিন বাদে ভালুকের দেখা মেলে। প্রাপ্ত বয়স্ক সেই ভালুকের আক্রমণে মারা যায় এক স্কুল ছাত্র। তারপর ক্ষিপ্ত চা শ্রমিকরা ভালুকটিকে পিটিয়ে মারে। তারপর মালবাজার শহর, নাগরাকাটা সহ একাধিক জায়গা থেকে ভালুক উদ্ধার করে।

দেখা যায় একাধিক জায়গায় ভালুকের দেখা পাওয়া যায়। পরে গরম পড়ার পর ভালুকের দেখা পাওয়া যায়নি। আবার চলতি বছর শীত পড়তেই সপ্তাহ দুই আগে কালচিনি ব্লকে আবার ভালুকের দেখা মেলে। গত সপ্তাহে মাল মহকুমা এলাকার কিলকোট চাবাগানে আবার দেখা মেলে ভালুকের। সেই আতংক কাটতে না কাটতেই বৃহস্পতিবার সকালে মালবাজার শহর সংলগ্ন টুনবাড়ি চাবাগানের ৬ নম্বর আবাদি এলাকায় আবার দেখা মেলে ভালুকের।

জানাগেছে, বৃহস্পতিবার সকালে ওই চাবাগানে আবাদি এলাকায় কীটনাশক স্প্রে করছিল চা শ্রমিক ডালে রাই ও সুরেশ রাউতিয়া। আচমকা তারা ভালুকের সামনে পড়ে। হাতের কীটনাশক স্প্রে গান দিয়ে তারা ভালুকের মুখে কীটনাশক স্প্রে করে কোনক্রমে রক্ষা পায়। কেউ জখম হয়নি। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে আসে মাল বন্যপ্রান স্কোয়ার্ড ও চালসা রেঞ্জের বনকর্মীরা। চলে আসে মাল থানার পুলিশ। জলপাইগুড়ি থেকে আসেন এডিএফও রিয়া গাঙ্গুলি সহ ঘুম পাড়ানি গুলি বিশেষজ্ঞ দল। 

চা বাগানের সর্দার মিলন মুন্ডা বলেন, আমাদের বাগানের দুই স্প্রে কর্মীকে ভালুকটি আক্রমণ করে। ভাগ্যক্রমে তারা রক্ষা পায়। এরপর ভালুক চাবাগানের মধ্যে লুকিয়ে পড়ে। এরপর দীর্ঘ সময় পর্যন্ত ভালুকটি চা গাছের নিচে আত্মগোপন করে থাকে। বনকর্মীরা ট্রাংকুলাইজিং করার চেষ্টা চালিয়ে যায়। বেলা ২টা নাগাদ ভালুকটি উঠে দাঁড়িয়ে আত্মপ্রকাশ করে সোজা মাল নদী অভিমুখে নেমে যায়। বিকাল পর্যন্ত বনকর্মীরা সেটিকে ধরার চেষ্টা করেও পরে ফিরতে বাধ্য হয়। 

এদিকে ভালুক ধরা না পড়ায় টুনবাড়ি সহ আশ পাশের চাবাগানে আতংক ছড়িয়েছে। শুধু তাই নয়, মালবাজার শহরের থেকে মাত্র কয়েক কিমি দূরে ভালুকের আগমনে শহরে উদ্বেগ ছড়িয়েছে। কারণ গতবছর শহরের ১১ নম্বর ওয়ার্ডের এক বাড়ি থেকে এক অপ্রাপ্তবয়স্ক ভালুক উদ্ধার করে বনকর্মীরা। 

Leave a Comment