News Britant

বাংলাদেশে আইওসি রিজিওনাল কমিটির অধিবেশন

Listen

( খবর টি শোনার জন্য ক্লিক করুন )


#হাবিবুর রহমান, ঢাকা: আন্তঃসরকার মহাসাগরীয় কমিশনের (আইওসি) রিজিওনাল কমিটি ফর দ্য সেন্ট্রাল ইন্ডিয়ান ওশানের নবম আন্তঃসরকারি অধিবেশন ঢাকায় শুরু হয়েছে। এতে সভাপতিত্ব করছে বাংলাদেশ। মঙ্গলবার রাজধানীর ইন্টারকন্টিনেন্টাল হোটেলে শুরু হওয়া এই অধিবেশন চলবে বৃহস্পতিবার পর্যন্ত।

বাংলাদেশ ছাড়াও অস্ট্রেলিয়া, ফ্রান্স, ভারত, ইন্দোনেশিয়া, ইরান, কুয়েত, মালয়েশিয়া, পাকিস্তান, কাতার, শ্রীলঙ্কা, সংযুক্ত আরব আমিরাত, মালদ্বীপ, সৌদি আরব ও ইয়েমেনের প্রতিনিধি, আইওসি-ইউনেস্কো সচিবালয়, ইন্ডিয়ান ওশান কমিশন এবং বিশ্বব্যাংকের স্বতন্ত্র পর্যবেক্ষক ও প্রতিনিধিরা এ অধিবেশনে অংশ নিয়েছেন।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন এক ভিডিও বার্তার মাধ্যমে তিন দিনব্যাপী সেশনের উদ্বোধন ঘোষণা করেন এবং অধিবেশনের প্রথম দিনে আয়োজক দেশের পক্ষে উদ্বোধনী বক্তব্য দেন। পররাষ্ট্রমন্ত্রী তার উদ্বোধনী বক্তব্যে এই অঞ্চলের নিরাপত্তা, সংযোগ, শান্তি ও সমৃদ্ধির জন্য ভারত মহাসাগরের গুরুত্ব তুলে ধরেন।

এছাড়া আঞ্চলিক ও আন্তর্জাতিক অঙ্গনে সামুদ্রিক বৈজ্ঞানিক গবেষণা কার্যক্রম পরিচালনা; প্রকল্প গ্রহণ এবং সমুদ্র পর্যবেক্ষণ ও তথ্য ব্যবস্থাপনার ক্ষেত্রে ভারত মহাসাগরের সদস্য রাষ্ট্রগুলোকে তাদের সুনির্দিষ্ট স্বার্থ ও অগ্রাধিকার বিবেচনা করে এই অঞ্চলের সক্ষমতা উন্নয়ন এবং সংশ্লিষ্ট কার্যক্রমে পারস্পরিক সহযোগিতা বাড়ানোর আহ্বান জানান। মোমেন আইওসি রিজিওনাল কমিটি ফর দ্য সেন্ট্রাল ইন্ডিয়ান ওশানকে আঞ্চলিক কমিটি থেকে একটি সাব-কমিশনে উন্নীত করতে বাংলাদেশের পক্ষ থেকে সর্বাত্মক প্রচেষ্টার বিষয়ে দৃঢ় আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

প্রথম দিনের অধিবেশনে বক্তব্য রাখেন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মেরিটাইম অ্যাফেয়ার্স ইউনিটের সচিব রিয়ার অ্যাডমিরাল মো. খুরশেদ আলম এবং আইওসির নির্বাহী সচিব ভ্লাদিমির রিয়াবিনিন। এছাড়া আইওসি সভাপতি এরিয়েল হার্নান ট্রয়সি, আন্তর্জাতিক সমুদ্রতল কর্তৃপক্ষের (আইএসএ) মহাসচিব মাইকেল ডব্লিউ লজ এবং আইওসি আফ্রিকার সভাপতি প্রফেসর আফিয়ান কৌদিও ভিডিও বার্তার মাধ্যমে প্রথম দিনের অধিবেশনে বক্তব্য রাখেন।

আগামী দুই দিন অংশগ্রহণকারীরা আইওসি রিজিওনাল কমিটি ফর দ্য সেন্ট্রাল ইন্ডিয়ান ওশানের অগ্রাধিকার প্রোগ্রাম ও প্রকল্প, ইউনেস্কো এবং আইওসির সাম্প্রতিক উন্নয়ন, ২০২১-২০২৩ সালের কমিটির বিভিন্ন কার্যক্রম, সুনীল অর্থনীতি, সামুদ্রিক জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণ, সমুদ্রের বাস্তুতন্ত্র ও মানবস্বাস্থ্য, জাতিসংঘ ঘোষিত এ সংক্রান্ত ভবিষ্যৎ কর্মপরিকল্পনা এবং ২০২৩-২০২৫ অর্থবছরের বাজেটসহ অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ বিষয় নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করবেন।

Leave a Comment

Also Read