রাজ্যে এনআরসি হতে দেব না, ভয় পাবেননা আমি পাহারাদার আছি: মুখ্যমন্ত্রী

#মালবাজার: আমাদের রাজ্যে এনআরসি হতে দেব না। আপনারা আতংকে ভুগবেন না, আমি পাহারাদার আছি। সিএএ হলো মাছের মাথা আর এনআরসি হলো মাছের লেজ। এই দুই দেখিয়ে বিজেপি মানুষকে ভয় দেখাচ্ছে। রাজ্যে ইতিমধ্যে আতংকে একজন মারা গেছে। আপনারা সিএএ ফর্ম ভরবেন না। কেউ আতংকিত হবেন না”। বৃহস্পতিবার মাল আদর্শ বিদ্যা ভবনের মাঠে নির্বাচনী জনসভায় এসে এভাবেই বিজেপির কেন্দ্রীয় সরকারের নীতির বিরুদ্ধে সোচ্চার হয়ে ওঠেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়।
এদিন দুপুর দেড়টা নাগাদ মুখ্যমন্ত্রী হেলিকপ্টার যোগে কোচবিহার জেলার মাথাভাঙায় জনসভা করে মালবাজারে আসেন। মাল আদর্শ বিদ্যা ভবনের মাঠে তখন হাজার হাজার মানুষ অধির আগ্রহ অপেক্ষা করছেন। মুখ্যমন্ত্রী মঞ্চে উঠতেই বিপুল জনতা হর্ষধ্বনির মধ্যে দিয়ে অভিনন্দন জানান। মঞ্চে তখন রয়েছেন ইন্দ্রনীল সেন, অনগ্রসর শ্রেনী কল্যাণ মন্ত্রী বুলু চিকবরাইক, শিলিগুড়ির মেয়র গৌতম দেব, জেলা তৃণমূল সভানেত্রী মহুয়া গোপ, মাল পৌরসভার চেয়ারম্যান স্বপন সাহা, জেলা তৃণমূল চেয়ারম্যান খগেশ্বর রায় প্রমুখ।
এদিন মুখ্যমন্ত্রী আগাগোড়া কেন্দ্রীয় সরকার ও বিজেপির বিভিন্ন নীতির বিরুদ্ধে সোচ্চার হয়ে ওঠেন। তিনি বলেন, বিজেপি ১০০ দিনের কাজের টাকা আটকে দিয়েছে, আবাস যোজনার টাকা আটকে দিয়েছে, মানুষকে বঞ্চিত করেছে। কিন্তু, আমরা মানুষের পাশে থাকি, মানুষের সমস্যাকে অনুভব করি। তাই ৫০ দিনের কাজের প্রকল্প নিয়েছি। রাজ্য সরকার এই টাকা দেবে। আবাসন প্রকল্পের ঘরের জন্য অর্থ বাজেটে পাশ করিয়ে নিয়েছি। আমরাই ঘরের টাকা দেব।
বিজেপি সামরিক ও আধাসামরিক বাহিনী নিয়ে রাজনীতি করছে। সেনাবাহিনীর হাসপাতাল গুলি বিভিন্ন সংস্থাকে দিয়েছে। সর্বত্র বিজেপিয়ায়ন করছে। আমরা এসবের প্রতিবাদ করি। প্রধানমন্ত্রীকে কটাক্ষ করে বলেন, উনি সর্বত্র প্রচার চান। র‍্যাশানের চালের ব্যাগে মোদীর ছবি। কাজ করলে প্রচারের দরকার হয় না। এসবের প্রতিবাদ করলে নানা ভাবে ভয় দেখানো হয়। উত্তর প্রদেশে সত্য প্রকাশ করায় ১১ জন সাংবাদিককে অর্ধনগ্ন করে আটকে রাখা হয়েছিল। আমরা এসব ভয় পাই না।
এদিন কখনও বাংলায় আবার হিন্দিতে বলেন, আমি দুদিন ধরে এখানে রয়েছি, কারন মানুষ বিপদে পড়লে পাশে এসে দাড়াই। গত রবিবার যখন খবর পেলাম ময়নাগুড়ি ঝড়ে বহু মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে তখন থাকতে পারিনি। রাতেই প্লেন জোগাড় করে ছুটে এসেছি। ক্ষতিগ্রস্ত পরিবার গুলির সংগে দেখা করেছি। গত ২০২২ সালে এই মালবাজার শহরে  দশমির বিসর্জন ঘাটে হরপা বানে ৮ জন মানুষের মৃত্যুর খবর পেয়েছিলাম তখনও ছুটে এসেছিলাম। পরিবার গুলির সংগে দেখা করেছিলাম। এভাবেই দুর্গতের পাশে সবসময় থাকব। এভাবেই বার বার বিজেপির সমালোচনা করেন এবং তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থীকে জয়ী করার আহ্বান জানান।
News Britant
Author: News Britant

Leave a Comment

Choose অবস্থা