বন্ধ সোনালী চা বাগান দ্রুত চালু করার জোর দাবি

#মালবাজার:  দুর্গাপুজোর আগে বোনাস ও বকেয়া বেতন নিয়ে অসন্তোষ চলছিল সোনালী চা বাগানে। দুর্গাপূজার পর থেকে দুবার বন্ধ হয়েছে সোনালী চা বাগান। এ কারণে চা শ্রমিকরা মঙ্গলবার সকালে গেট মিটিং করে আবারও আবাদ বন্ধের দাবিতে আওয়াজ তোলেন। জানা গেছে, 20 অক্টোবর শিলিগুড়ির উত্তরবঙ্গ অঞ্চলের অতিরিক্ত শ্রম কমিশনারের অফিসে একটি ত্রিপক্ষীয় বৈঠক ডাকা হয়েছিল।
সেই বৈঠকে চুক্তি  হয়েছিল যে 2022-23 আর্থিক বছরের জন্য বোনাস সেই অনুযায়ী 19% হারে দেওয়া হবে। 21 অক্টোবর 11 শতাংশ এবং 8 শতাংশের দ্বিতীয় ব্যালেন্স 23 ডিসেম্বরের আগে পরিশোধ করা হবে। অভিযোগ রয়েছে, প্ল্যান্টেশনের মালিক চুক্তি উপেক্ষা করায় ডিসেম্বর মাসে আবার চাবাগানটি  বন্ধ হয়ে যায়। বাগরাকোট গ্রাম পঞ্চায়েত অঞ্চল  আইএনটিটিইউসি সভাপতি জন প্রকাশ ওরাওঁ বলেন যে বাগানটি  বন্ধ হয়ে যাওয়ায় প্রায় 350 জন শ্রমিকের অবস্থা বেশ করুণ।
তাদের জীবন-জীবিকায় বিরূপ প্রভাব পড়েছে। চা বাগানের অবস্থাও দিন দিন খারাপ হচ্ছে। চুক্তি অনুযায়ী শ্রমিকরা ১৯ শতাংশ বোনাসের মাত্র ১১ শতাংশ দিলেও  বাকি ৮ শতাংশ বোনাস বড় দিনের আগে দেওয়ার কথা থাকলেও তা হয়নি। ৩ মাসের বেতনের বকেয়া এবং ৮ শতাংশ বোনাস ও বাগান পুনরায় চালুর দাবিতে গেট মিটিং অনুষ্ঠিত হয়েছে।
News Britant
Author: News Britant

Leave a Comment

Choose অবস্থা