বন্ধ সোনালী চাবাগান খোলার দাবী, শীতে ৩৫০ শ্রমিককে কম্বল বিতরণ

#মালবাজার: রাজ্য সরকারের তরফ থেকে বন্ধ সোনালী চা বাগান আবার চালু করার চেষ্টা চলছে। আগামী ২৯ তারিখ আবারও এ বিষয়ে বৈঠক হতে যাচ্ছে। সোনালী চা বাগানে কম্বল বিতরণ করতে আসা বাগরাকোট গ্রাম পঞ্চায়েত তৃণমূল অঞ্চল   সভাপতি রাজেশ ছেত্রী সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন। প্রাপ্ত তথ্য অনুসারে, মঙ্গলবার বাগরাকোট গ্রাম পঞ্চায়েত সোনালী চা বাগানের ৩৫০  জন শ্রমিককে শীত থেকে মুক্তি দেওয়ার লক্ষ্যে কম্বল দিয়েছে।
এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বাগরাকোট গ্রাম পঞ্চায়েত প্রধান পুনম লোহার,অঞ্চল  সভাপতি রাজেশ ছেত্রী, জলপাইগুড়ি জেলা পরিষদের শিশু ও মহিলা কল্যাণ কর্মাধ্যক্ষ  সেলিনা ছেত্রী, শ্রমিক নেতা পুরান লোহার, বাবুলাল ওরাওঁ, সমাজসেবক সুশীল মাঞ্জি সহ বিশিষ্ট ব্যক্তিরা।
তৃণমূল নেতা রাজেশ ছেত্রী বলেছেন যে আমরা চা শ্রমিকদের সাথে আছি যারা বাগান বন্ধের ক্ষতির সম্মুখীন হচ্ছে। গত মাসে বিডিও-র মাধ্যমে কর্মীদের জিআর রেশন দেওয়া হয়েছিল, আবার শ্রমিকরা জিআর রেশন পাবেন। সরকার বাগান খোলার ব্যাপারে খুবই আন্তরিক। শ্রমিক নেতা বাবুলাল ওরাওঁ বলেন, শ্রমিকদের জীবন-জীবিকায় বিরূপ প্রভাব পড়েছে।
কর্মসংস্থানের সন্ধানে শ্রমিকরা দেশান্তরী হতে বাধ্য হয়।আমাদের দাবি অভিলম্ব বাগান পুনরায় চালু করা হোক। পুষ্প ওরাওঁসহ অনেক শ্রমিক বলেন, এটা খুবই ভালো উদ্যোগ।আমাদের ঠান্ডা থেকে বাঁচতে কম্বল দেওয়া হয়েছে। তবে এটি যথেষ্ট নয়, আমরা চাই বাগানগুলো শীঘ্রই চালু হোক। বাগান বন্ধ থাকায় শিশুরা বাগান থেকে স্কুলে যাওয়ার জন্য যানবাহন পাচ্ছে না এবং এ কারণে তাদের লেখাপড়া ব্যাহত হচ্ছে।
News Britant
Author: News Britant

Leave a Comment

Choose অবস্থা