দীর্ঘ রাস্তার নবনির্মান হলো বন ও পাহাড়ের মাঝ দিয়ে, বাড়বে পর্যটন ব্যবসা

#মালবাজার: বন ও পাহাড়ের মাঝ দিয়ে  নাগরাকাটা ব্লকের  খুনিয়া মোর  থেকে গরুবাথান ব্লকের বিন্দু পর্যন্ত দীর্ঘ রাস্তার সম্পুর্ন নবনির্মান হলো। বর্ডার রোড অর্গানাইজেশনের  পক্ষ থেকে খুনিয়া জিরো পয়েন্ট থেকে বিন্দু পর্যন্ত ৩৫ কিলোমিটার ঝা চকচকে রাস্তা তৈরি করা হয়েছে।মাঝখানে কিছু রাস্তা বাকি আছে সেটাও দ্রুতই শেষ হয়ে যাবে বলে নির্মাণকারী সংস্থার  সুত্রেই জানা গিয়েছে। স্বাভাবিক পর্যটন এলাকায় এই রাস্তা এই রাস্তা তৈরি হওয়ার ফলে ভারতের আভ্যন্তরীণ নিরাপত্তা যেমন মজবুত হবে তেমনে পর্যটন ব্যবসারও প্রসার হবে মনে করা হচ্ছে।
এই পথ ধরে চাপরামারি ওয়াচ টাওয়ার, ঝালং যেতে হয়। নির্মাণকারী সংস্থার জুনিয়র ইঞ্জিনিয়ার আজিজ লস্কর বলেন, বর্ডার রোড অর্গানাইজেশনের ৮৭ আরএসসি র পক্ষ থেকে খুনিয়া জিরো পয়েন্ট থেকে বিন্দু পর্যন্ত ৩৫ কিলোমিটার ঝা চকচকে রাস্তা তৈরি করা হয়েছে। মাঝখানে কিছু রাস্তা বাকি আছে সেটাও দ্রুতই শেষ হয়ে যাবে। গরুমারা টুরিজম টুরিজম ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি তাজমল হক বলেন, রাস্তাটি তৈরি হওয়াতে আমরা খুশি হয়েছি।
এখন ঝালং, বিন্দু যাওয়া সুবিধা জনক হবে। লাটাগুড়ি রিসোর্ট ওনার্স এসোসিয়েশনের সম্পাদক দিবেন্দু দেব বলেন, পর্যটন ব্যবসা নির্ভর করে যোগাযোগের মাধ্যম ভালো হলে। এই রাস্তা তৈরি হওয়াতে আমরা খুশি হয়েছি। উল্লেখ্য যে গরুবাথান ব্লকের ঝালং বিন্দু, তোদে তানতা, প্যারেন, গৈরিবাস,রঙ্গু, কুমাই টপ এই এলাকা গুলি হল পুরোপুরি ভাবে পর্যটন ব্যবসার উপর নির্ভরশীল।এরমধ্যে তানতা ভুটান সীমান্তে রয়েছে।
 এক সময় এই রাস্তা ভীষণ খারাপ ছিল।কিন্তু এখন সেই রাস্তা তৈরি হয়ে যাওয়ায় পর্যটন ব্যবসা আরো ভালো হবে বলেই পর্যটন ব্যবসায়ী দের আশা।
এছাড়াও তোদে তানতা ও সিকিম হয়ে  চীন সীমানা যাওয়ার একটা নতুন রাস্তা তৈরি হচ্ছে।বিন্দু পর্যন্ত রাস্তা হলেও বিন্দু থেকে তোদে তানতা, রাচেলা হয়ে পেদং থেকে সিকিম যাওয়ার একটা রাস্তা রাস্তাতৈরি করার পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে।তার সার্ভেও শুরু হয়ে গিয়েছে বলে জানা গিয়েছে। এই রাস্তার কাজ সম্পুর্ন শেষ হলে আভ্যন্তরীণ নিরপত্তা মজবুত হবে বলে আশা রয়েছে।
News Britant
Author: News Britant

Leave a Comment

Choose অবস্থা