বাগরাকোটে দিব্যাঙ্গদের এক দিবসীয় ক্রীড়া প্রতিযোগিতার অনুষ্ঠিত

#মালবাজার: ওদের কেউ কথা বলতে পারেনা, কেউ চোখে দেখেনা, আবার কেউ স্বাভাবিক চলাফেরা করতে অক্ষম। কিন্তু, ওদের মধ্যেও প্রতিভা রয়েছে। উদ্যোগ নিলে ওদের প্রতিভা বিকশিত হতে পারে। এই রকম শারীরিক ও মানসিক দিক থেকে বিশেষ ভাবে সক্ষম দের নিয়ে রবিবার মাল ব্লকের বাগরাকোট ভানু ময়দানে নি:স্বার্থ নামের এক স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার উদ্যোগে এক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়।
এদিন পদ্মশ্রী করিমুল হক, মাল মহকুমাশাসক শুভম কুন্ডাল, কর্নেল বিমল সচদেবা, বিধায়ক কার্সিয়াং বিপি বজগাই, জলপাইগুড়ি জেলা পরিষদের কর্মাধ্যক্ষ সেলিনা ছেত্রী, নি:স্বার্থের প্রতিষ্ঠাতা হর্ষকুমার প্রমুখ প্রদীপ জ্বালিয়ে এই ক্রীড়া প্রতিযোগিতার সূচনা করেন। সূচনার পর মহকুমাশাসক তার বক্তব্যের মধ্যে নি:স্বার্থের সামাজিক কাজ কর্ম নিয়ে প্রশংসা করেন।
এদিন ডুয়ার্সের ২২টি চাবাগান থেকে ১১০ জন দিব্যাঙ্গ এই ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় অংশ নেয়।
হুইলচেয়ার দৌড় সহ নানা বিভাগে প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। বিশেষ ভাবে সক্ষম প্রতিযোগীদের কম্বল, মেডেল ও মানপত্র দিয়ে মনবল বাড়ানো হয়।
নি:স্বার্থের প্রতিষ্ঠাতা হর্ষ কুমার বলেন, শারীরিক ও মানসিক ভাবে অসমর্থ ব্যাক্তিরা অপাংতেয় নয়।সুযোগ পেলে তারা প্রতিভার বিকাশ করেতে পারে। এজন্য এই আয়োজন।
উল্লেখ্য, ২০০৬ সালে তৎকালীন বাগরাকোট চা বাগানের ম্যানেজার হর্ষ কুমার ও তার স্ত্রী নিলম কুমারী স্থানীয় লোকজনদের নিয়ে দিব্যাঙ্গদের নিয়ে কাজ করার তাগিদে নি:স্বার্থ নামের এক স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা গঠন করেন। ২০০৮ সালে স্ত্রী মারা যাওয়ার পর হর্ষকুমার সম্পুর্ন ভাবে বিশেষ ভাবে সক্ষমদের নিয়ে কাজ শুরু করেন। ইতিমধ্যে প্রতিবন্ধীদের জন্য স্কুল করেছেন। তাদের স্বাবলম্বী করতে নানান হাতের কাজ শেখানো হয়।  এ পর্যন্ত ২০০০ চলতে অক্ষম প্রতিবন্ধীকে এই সংস্থা থেকে হুইলচেয়ার দেওয়া হয়েছে। এদিন সমগ্র অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন শিক্ষক অজিত খেরকা।
News Britant
Author: News Britant

Leave a Comment

Choose অবস্থা