প্রতিশ্রুতিমতো হয়নি রাস্তা ক্ষুদ্ধ চা বাগানের বাসিন্দারা

#মালবাজার: বহু বছর ধরে বেহাল হয়ে আছে প্রায় ৬ কিলোমিটার রাস্তা। বহু প্রতিশ্রুতির পরেও রাস্তা হয়নি। আর এতেই ক্ষিপ্ত মাল ব্লকের বাগ্রাকোট গ্রাম পঞ্চায়েতের সোনালী চাবাগান সহ লিসরিভার চাবাগান এবং সাউগাও বস্তির প্রায় ১৬ হাজার বাসিন্দারা। প্রতিদিন এই দুটি চাবাগান এবং সাউগাও গ্রামের মানুষ এই খানাখন্দভরা রাস্তা দিয়েই যাতায়াত করতে হচ্ছে। যার ফলে প্রতিনিয়ত বারছে দুর্ঘটনা।  সরকার নজর দিচ্ছে না এই এলাকায়, দাবি স্থানিয় বাসিন্দা তথা চা শ্রমিকদের।
গ্রাম পঞ্চায়েতের ভোটের আগেও প্রতিশ্রুতি মিলেছিলো, রাস্তাটি ঠিকঠাক করা হবে কিন্তু ভোট চলে যেতেই, এই রাস্তার দিকে কেউ ঘুরেও তাকায়নি। দাবি স্থানিয় মানুষদের। বাগ্রাকোটের মিনা মোড়ের  ৩১ নাম্বার জাতীয় সড়ক থেকে লিসরিভার চাবাগান থেকে শুরু করে,  সোনালী চাবাগান হয়ে  সাউগাও পর্যন্ত বেহাল এই রাস্তা। পিচে চাঁদর বহুদিন আগেও উঠে গেছে। এখন রাস্তার পাথর বেরিয়ে পরেছে। রাস্তায় বড় বড় গর্ত।  কোথাও রাস্তা পুকুরের মত হয়ে গেছে। ভাঙ্গাচুরা রাস্তার জন্য ধুলোয় ভরেছে বিভিন্ন এলাকা।
এলাকার বাসিন্দা বাবুলাল ওড়াও, হেলারিজ টিজ্ঞা বলেন, রাস্তার জন্য বিভিন্ন দপ্তরে চিঠি করেছি কিন্তু কোন দপ্তর রাস্তার কাজ করতে আসেনি। রাজ্য সরকার বিভিন্ন জায়গায় নতুন নতুন রাস্তা করে দিচ্ছে কিন্তু আমাদের দিকে নজর নেই। ভোটের আগে আমাদের প্রধান দাবি ছিলো এই রাস্তার। প্রতিশ্রুতি মিলেছিলো কিন্তু বাস্তবে কিছুই হয় নি। বর্তমানে আমাদের এলাকায় কোন টোটো রিক্সা আসতে চায় না। ডেলিভারি রোগীকে এই রাস্তা দিয়ে নিয়ে যাওয়া যায় না। কেন আজ আমরা অবহেলিত?  দাবি স্থানিয়দের।
বাগ্রাকোট গ্রাম পঞ্চায়েতের অন্তর্গত এই এলাকাটি। বাগ্রাকোট গ্রাম পঞ্চায়েতের অঞ্চল সভাপতি রাজেস ছেত্রী এবং প্রধান পুনোম লোহার বলেন, এই রাস্তা নিয়ে আমরাও চিন্তায় আছি। রাস্তার হাল খুবই খারাপ। এব্যাপারে আমরা জলপাইগুড়ি জেলা পরিষদে, উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন দপ্তর সহ বিভিন্ন দপ্তরের লিখিত আকারে জানিয়েছি। এলাকার মানুষের সমস্যার কথা ভেবেই আমরা দ্রুত রাস্তার কাজটি করার জন্য অনুরোধ করেছি বিভিন্ন দপ্তরে। আশা করছি দ্রুত রাস্তার কাজটি হয়ে যাবে।
News Britant
Author: News Britant

Leave a Comment

Choose অবস্থা