ঢাকার প্রেমিক ও মেটেলির প্রেমিকার সাক্ষাৎয়ের ঘটনায় ধুন্ধুমার কাণ্ড মালবাজারে

#মালবাজার: বাংলাদেশের ঢাকা নিবাসী প্রেমিক ও ডুয়ার্সের মেটেলি ব্লকের বিধাননগর গ্রাম পঞ্চায়েত নিবাসী প্রেমিকার দেখাসাক্ষাৎয়ের পর তাদের নিয়েই ধুন্ধুমার কান্ড মালবাজারে। সেই বাংলাদেশী নাগরিককে আটক করতে এসে পুলিশ ও জনতার বাদবিতণ্ডায় উত্তপ্ত মাল শহরের ক্যালটেক্স মোর।
ঘটনা প্রসঙ্গে জানা গিয়েছে, ডুয়ার্সের মেটেলি থানার, বিধাননগর গ্রাম পঞ্চায়েতের মাথাচুলকা গ্রামের এক তরুণী ও এক বাংলাদেশী নাগরিককের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক তৈরী হয়ছিলো।
কয়েক মাস আগে সোশ্যাল মিডিয়ায় আলাপ হয় এই বাংলাদেশি নাগরিকের এবং ওই তরুনীর মধ্যে । এরপর তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। তরুনীকে বিয়ে করে বাংলাদেশে নিয়ে যাওয়ার প্রস্তাব দেয় ওই বাংলাদেশী যুবক। তরুনী তাতে রাজি হয়। সেই মত পাসপোর্ট, ভিসা নিয়ে বৈধভাবেই ভারতে আসে যুবক। সোমবার যুবক মালাবাজারে আসে তরুনীকে নিয়ে যেতে। তরুনী বাড়িতে কিছু না জানিয়ে যুবকের সঙ্গে পালিয়ে যায়।
এদিকে তরুনীর খোঁজ না পেয়ে সোমবারই মেটালি থানায় নিখোঁজ সংক্রান্ত একটি অভিযোগ দায়ের করে পরিবার। মঙ্গলবার ওই তরুনী এবং বাংলাদেশী যুবককে মালবাজার সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালের সামনে থেকে আটক করে মালবাজার থানার পুলিশ এবং তাদের মালবাজার থানায় নিয়ে যাওয়া হয়। খবর দেওয়া হয় মেটেলি থানার পুলিশকে। সেইমত মেটেলি থানার পুলিশ,  মালবাজার থানায় এসে ওই দুজনকে নিজেদের হেফাজতে নিয়ে মেটেলি থানায় যাওয়ার উদ্দেশ্যে রওনা হয়।
কিন্তু মাঝপথে মালবাজার শহরের ক্যাল্টেক্স মোড়ে আচমকাই পুলিশের গাড়ি বিকল হয়ে যায়। গাড়ি থেকে কালো ধোয়া নির্গত হতে থাকে। সেইসময়  তরুণীর পরিবারের লোকজন এবং মাথাচুলকার গ্রামবাসীরা সেখানে চলে আসে। পুলিশের গাড়ি ঘিরে ধরে তারা ওই বাংলাদেশী যুবককে মারধর করতে শুরু করে। তাকে পুলিশের হাত থেকে ছিনিয়ে নেওয়ার চেস্টাও করে বলে অভিযোগ। ঘটনায় পুলিশকর্মীরা বাধা দিতে গেলে পুলিশের সঙ্গেই হাতাহাতিতে জড়িয়ে পড়ে তরুনীর পরিবার এবং গ্রামবাসীরা। ঘটনায় উত্তেজনা তৈরী হয়। ক্যাল্টেক্স মোড়ের মানুষজন ছুটে আসেন।
তারাই পুলিশদের উদ্ধার করেন। খবর পেয়ে মালবাজার থানার আইসি সমীর তামাংয়ের নেতৃত্বে পুলিশ বাহিনী ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। আটক তরুনী ও যুবককে আবার ঘুরিয়ে মালবাজার থানায় নিয়ে আসে পুলিশ । তাদের জিজ্ঞাসাবাদ চালাচ্ছে পুলিশ।  তবে তরুণীর পরিবারের অভিযোগ, ওই বাংলাদেশি নাগরিক তরুণীকে প্রেমের ফাঁদে ফেলে পাচার করার উদ্দেশ্যে নিয়ে যাচ্ছিলো। ওই যুবক আন্তর্জাতিক নারী পাচার চক্রের সাথে যুক্ত থাকতে পারে এবং এর আগেও এই ব্যক্তি তিনটি বিয়ে করেছে বলে দাবি তরুনীর পরিবারের।
News Britant
Author: News Britant

Leave a Comment

Choose অবস্থা