হাটের জমি আগেই দখল হয়েছে এবার মন্দিরের জমিতে পড়েছে থাবা ক্ষুদ্ধ এলাকার মানুষ


#মালবাজার: মালবাজার মহকুমা অন্যতম  প্রাচীন  এবং সব থেকে বড় হাট হলো ওদলাবাড়ি হাট। প্রতি রবিবারের পাশাপাশি প্রতিদিন এই হাটে বসে বিরাট বাজার। তবে দিন দিন সঙ্কুচিত হয়ে যাচ্ছে এই হাট। কারন আস্তে আস্তে দখল হয়ে যাচ্ছে হাটের জায়গা। হাটের মধ্যে গড়ে উঠছে অবৈধ নির্মান। হাটের দোচালা দখল হয়ে এখন স্থায়ী দোকানে পরিনত হয়ে গেছে। দেখার কেউ নেই। আর এবার হাটের মাঝে থাকা পুরনো বড় কালি মন্দিরের জায়গায় গড়ে উঠছে কিছু দোকান বলে ব্যাবসায়ীদের অভিযোগ।  আর এতেই বাধা দেয় স্থানিয় কিছু ব্যাবসায়ীসহ মন্দির কমেটি।

ওদলাবাড়ি বাজারের করুনাময়ী এই কালি মন্দিরের কর্মকর্তা গৌতম পাল, অশোক মুখার্জি, সুশান্ত কুন্ডু বলেন, এর আগে হাটের জায়গায় বহু নির্মান হয়েছে কিন্তু আমরা কিছু বলিনি ব্যাবসায়ীদের  তবে  এবার দেখছি মন্দিরও বাদ রাখছে না ব্যাবসায়ীরা। মন্দিরে দেওয়ালেই তৈরি হচ্ছে দোকানপাট। মন্দিরের সেডের নিচে গতকাল থেকে লোহার ট্রাকচার তৈরি করছে কিছু ব্যাবসায়ী।  অবিলম্বে এইসব বন্ধ করতে প্রশাসনের দারস্থ হয়েছেন মন্দির কমিটি।

মন্দিরের পুরোহিত অরবিন্দ ভট্টাচার্য  বলেন, যেভাবে মন্দিরের চারপাশে দোকানপাট গড়ে উঠছে, তাতে পুরোনো এই কালি মন্দির অন্ধকারে ঢেকে যাচ্ছে। পাশাপাশি মন্দিরের বিদ্যুৎয়ের  লাইন থেকে বিভিন্ন ব্যাবসায়ীরা বিদ্যুৎ’য়ের সংযোগ নেওয়ার কারনে, যখন তখন বড় অগ্নি সংযোগের ঘটনা ঘটতে । পারে। হাটের এই গিঞ্জি এলাকায় বিদ্যুৎ’য়ের ঝুঁকি পুর্ন এই কানেশন থেকে আগুন লাগলে বহু দোকান পাঠ ক্ষতি হয়ে যাবে।

এব্যাপারে ওদলাবাড়ি হাট ব্যাবসায়ী সমিতির অন্যতম সদস্য বালমুকন্দ প্রজাতি বলেন, ব্যাবসায়ীরা দোকান করছে। এটা আলোচনার মধ্যে মিটিয়ে নেওয়া উচিত। এব্যাপারে ব্যাবসায়ী এবং মন্দির কমেটির সাথে আলোচনা করা হবে।
জানাগেছে, ওদলাবাড়ি হাট জলপাইগুড়ি জেলা পরিষদের তত্বাবধানে রয়েছে। জেলা পরিষদের সদস্য কিম্বা কর্মীদের এনিয়ে কোন হেলদোল নেই।

News Britant
Author: News Britant

Leave a Comment

Choose অবস্থা