মুন্ডুহীন ক্ষতবিক্ষত চিতাবাঘের শাবক উদ্ধার ঘিরে চাঞ্চল্য

#মালবাজার: ডুয়ার্সের ডামডিম চাবাগানে মুন্ডুহীন ক্ষতবিক্ষত চিতাবাঘের দেহ উদ্ধারকে ঘিরে চাঞ্চল্য ছড়ালো চাবাগান ও বনবিভাগের কর্মী ও আধিকারিক দের মধ্যে। শ্নিগারডগ নিয়ে এসে তদন্ত করেছে বনবিভাগ। বনবিভাগের প্রাথমিক অনুমান বিড়াল জাতীয় প্রাণীর  স্বাভাবিক প্রবৃত্তির প্রতিক্রিয়া। কোন পাচার চক্রের কাজ কি না?  খতিয়ে দেখা হচ্ছে। কোন কিছুই উড়িয়ে দিচ্ছে না বনদপ্তর।
জানাগেছে, শনিবার সকালে ডামডিম চাবাগানে ১৮ নম্বর আবাদি এলাকায় একটি মুন্ডহীন ক্ষত বিক্ষত দেহ দেখতে পাওয়া যায়। এই খবরে চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে চাবাগান এলাকায়। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে আসে বনবিভাগের কর্মী ও আধিকারিকরা। কিভাবে এই ঘটনা ঘটলো তার তদন্ত শুরু হয়। আনা হয় শ্নিগারডগ। আশ পাশ এলাকায় খোঁজ হয়েছে।
বনবিভাগের সুত্রে জানাগেছে, মৃত চিতাবাঘটি পুরুষ এবং আনুমানিক ৩ থেকে ৪ মাস বয়স হবে।
এদিন বিকেলে ওই চিতাবাঘের দেহ ময়নাতদন্ত হয়।
গরুমারা বন্যপ্রান বিভাগের বিভাগীয় আধিকারিক দ্বিজপ্রতিম সেন জানান, আমরা সব দিক খতিয়ে দেখছি। প্রাথমিক অনুমান অন্য কোন চিতাবাঘের আক্রমণে ঘটনা ঘটেছে। ময়নাতদন্তের পরে সব জানা যাবে।
আরও জানাগেছে, শ্নিগার ডগ বনাঞ্চল অভিমুখে যেতে দেখা গেছে। শ্রমিক মহল্লার দিকে যায়নি। তাতেই অনুমান অন্য চিতাবাঘের আক্রমণের ফলে ঘটনা ঘটেছে। শেষ পর্যন্ত মুন্ডু উদ্ধার হয়নি।
এনিয়ে উত্তর বঙ্গের বিশিষ্ট পরিবেশ প্রেমী ও ন্যাফের কো-অর্ডিনেটর অনিমেষ বসু বলেন, বিড়াল জাতীয় প্রাণীদের অভ্যাস রয়েছে। শাবক পুরুষ হলে পিতা স্থানীয়রা তাদের উপর শৈশবে আক্রমণ করে। হয়তো এরকম হতে পারে। সব না যেন বলা যাবে না।
News Britant
Author: News Britant

Leave a Comment

Choose অবস্থা